RSS

Category Archives: মিষ্টি ও মিষ্টিজাত

মুচমুচে ঝরকা

উপকরণ : ময়দা ২ কাপ, লবণ সিকি চা-চামচ, তেল ২ টেবিল চামচ ও ভাজার জন্য। পানি আধা কাপ, রোস্ট করা সাদা তিল ২ টেবিল চামচ।

শিরার জন্য : চিনি ২ কাপ, পানি ১ কাপ, গোলাপজল ২ চা-চামচ, জাফরান সিকি চা-চামচ (গোলাপজলে ভিজিয়ে রাখুন)।

প্রণালি : চিনির সঙ্গে পানি মিশিয়ে জ্বাল দিয়ে ঘন শিরা তৈরি করুন। ছেঁকে নিয়ে গোলাপজলে মেশানো জাফরান দিয়ে নেড়ে রাখুন। ময়দার সঙ্গে লবণ মিশিয়ে তেলের ময়ান দিন। পানি মিশিয়ে ময়দা ভালো করে মেখে নিন। ২৪টি ভাগ করুন। প্রতিটি ভাগ হাতের তালুতে নিয়ে গোল ও মসৃণ করে চ্যাপ্টা করে রাখুন। ঘণ্টা খানেক ঢেকে রেখে দিন। রুটি বেলার পিঁড়িতে বা টেবিলে লুচির মতো বেলুন। চারপাশ থেকে ১ সেন্টিমিটার ছেড়ে ছুরি দিয়ে ৫-৬টি লম্বা দাগ কাটুন। এবার সাবধানে হালকাভাবে একধার থেকে সামান্য ভাঁজ করে মাঝখানে এনে একইভাবে অপর প্রান্ত থেকে সামান্য ভাঁজ করে মাঝখানে আরেকটি অংশ আনুন। দুটি অংশ হাত দিয়ে চেপে দিন। বেলুনির হাতলের মতো দুটি হাতল হবে। দেখতে অনেকটা চকলেটের মতো লাগবে। কড়াইয়ে তেল গরম করে ঝরকার হাতল ধরে গরম ডুবো তেলে ছাড়ুন। আঁচ কমিয়ে সোনালি রং করে ভেজে তেল ছেঁকে উঠিয়ে সরাসরি িশরায় ছাড়ুন। মিনিট খানেক শিরায় ডুবিয়ে রেখে প্লেটে সাজিয়ে ওপর থেকে সাদা তিল ছিটিয়ে দিন। ডায়বেটিসের রোগীরা শিরায় না চুবিয়ে কেবল ভাজাটা খাবেন। খেয়ে স্বাদ পাবেন।

মুচমুচে ঝরকারেসিপিটি প্রকাশিত হয় ৮ জুলাই ২০১৪
PALO

Advertisements
 

ময়দার হালুয়া

উপকরণ : ময়দা ৫০০ গ্রাম, ঘি ৫০০ গ্রাম, চিনি ৫০০ গ্রাম, মিল্ক পাউডার ২০০ গ্রাম, ফুড কালার ইচ্ছামতো, পেস্তা বাদাম কুচি আধা কাপ, গোলাপজল পরিমাণমতো। কিশমিশ আধা কাপ, ছানা আধা কাপ, খেজুর কুচি আধা কাপ।

প্রস্তুত প্রণালি : প্রথমে প্যানে ঘি ঢেলে ময়দা ভেজে নিন। এবার ময়দা তিন ভাগে ভাগ করে নিন। প্রথম ভাগ নিয়ে পরিমাণমতো পানি দিয়ে গুলিয়ে নিন। প্যানে সামান্য ঘি দিয়ে ময়দা দিন। ভালো করে নাড়তে থাকুন। পেস্তা বাদাম কুচি ও কিছু কিশমিশ মেশান। ঘন ও আঠালো হয়ে এলে মিল্ক পাউডার দিয়ে নামিয়ে একটি বাটিতে ঢেলে রাখুন। দ্বিতীয় ভাগ ময়দা গুলিয়ে ফুড কালার মেশান। খেজুর কুচি মিশিয়ে প্রথম ভাগের মতো রান্না করুন এবং বাটিতে ঢেলে রাখুন। তৃতীয় ভাগ ছানা মিশিয়ে আগের মতো রান্না করুন। এরপর তিনটি হালুয়া একসঙ্গে আলতো করে মেখে একটি বাক্সে ঢেলে শেপ করে কেটে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।

ময়দার হালুয়ারেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১১ জুন ২০১৪
1SAMAKAL=LOGO

 

ছানা গাজরের হালুয়া

উপকরণ : গ্রেট করা গাজর ১ কাপ, ছানা ১ কাপ, কনডেন্স মিল্ক ১ কাপ, চিনি আধা কাপ, কিশমিশ ১ টেবিল চামচ, রোস্টেড কাজু বাদাম গুঁড়া আধা কাপ, এলাচ গুঁড়া আধা চা চামচ, জাফরান ভেজানো পানি ১ টেবিল চামচ, গুঁড়া দুধ ১ কাপ, ঘি ১ কাপ, লিকুইড দুধ ১ কাপ।

প্রস্তুত প্রণালি : গ্রেট করা গাজর ১ কাপ দুধ দিয়ে সিদ্ধ করে নিন। এবার প্যানে ঘি দিয়ে গ্রেট করা গাজর দিন। এলাচ গুঁড়া ও কিশমিশ দিয়ে নাড়ূন, যেন পুড়ে না যায়। এবার এতে ছানা যোগ করুন। বাকি সব উপকরণ দিয়ে নাড়তে থাকুন। আঠালো হয়ে এলে একটি ডিশে ঘি মাখিয়ে মিশ্রণটি ঢেলে দিন। ঠাণ্ডা হলে ইচ্ছামতো সাজিয়ে বা কেটে পরিবেশন করুন।

ছানা গাজরের হালুয়া রেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১১ জুন ২০১৪
1SAMAKAL=LOGO

 

কাঁচা আমের হালুয়া

উপকরণ : কাঁচা আম ৪টি, চিনি আড়াই কাপ, ঘি আধা কাপ, এলাচ গুঁড়া ৪টি, সবুজ ফুড কালার সামান্য, কিশমিশ ২ টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি : খোসাসহ আম সিদ্ধ করে নিন। আমের খোসা ছিলে ব্লেন্ড করে নিন। প্যানে ঘি দিয়ে এলাচ ও কিশমিশ দিন। আম দিয়ে কিছুক্ষণ ভাজুন। চিনি দিন। ভালো করে নাড়তে থাকুন, যেন লেগে না যায়। যখন ঘন হয়ে আসবে তখন নামিয়ে নিন এবং ঠাণ্ডা হলে পরিবেশন করুন।

কাঁচা আমের হালুয়া রেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১১ জুন ২০১৪
1SAMAKAL=LOGO

 

ডিমের হালুয়া

উপকরণ : ডিম ৬টি, দুধ ১ লিটার, কনডেন্সড মিল্ক আধা কৌটা, চিজনি আধা কাপ বা স্বাদ অনুযায়ী, এলাচ গুঁড়া ৪/৫টি, দারুচিনি ৩ টুকরো, কিশমিশ ১ টেবিল চামচ, গোলাপজল ১ টেবিল চামচ, ঘি ১ কাপ, পেস্তা বাদাম কুচি ১ টেবিল চামচ।

প্রস্তুত প্রণালি : দুধ জ্বাল দিয়ে ঘন করে ঠাণ্ডা করুন। ডিম ফেটিয়ে নিন। এবার সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। প্যানে ঘি দিয়ে সব উপকরণ ঢেলে নাড়তে থাকুন। হয়ে গেলে নামিয়ে নিন এবং পরিবেশন করুন।

ডিমের হালুয়ারেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১১ জুন ২০১৪
1SAMAKAL=LOGO

 

কাঁঠালের বিচির হালুয়া

উপকরণ : কাঁঠালের বিচি ৫০০ গ্রাম, কনডেন্সড মিল্ক আধা কৌটা, চিনি আধা কাপ, গুঁড়াদুধ আধা কাপ, কিশমিশ ২ টেবিল চামচ, পেস্তা বাদাম কুচি ২ টেবিল চামচ, এলাচ-দারুচিনি ৩/৪টি, ঘি আধা কাপ, জাফরান ভেজানো গোলাপজল পরিমাণমতো।

প্রস্তুত প্রণালি : কাঁঠালের বিচি সিদ্ধ করে বেটে নিন। প্যানে ঘি দিয়ে এলাচ, দারুচিনি ও কিশমিশ দিয়ে বাটা কাঁঠালের বিচি দিন। এবার এতে চিনি ও কনডেন্সড মিল্ক দিয়ে নাড়তে থাকুন। গুঁড়া দুধ ও বাদাম কুচি দিয়ে আবারও নাড়তে থাকুন, যাতে না লেগে যায়। সবশেষে জাফরান ভেজানো গোলাপজল দিয়ে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে পরিবেশন করুন।

কাঁঠালের বিচির হালুয়ারেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১১ জুন ২০১৪
1SAMAKAL=LOGO

 

শাহি জর্দা

উপকরণ : বাসমতি চাল ৫০০ গ্রাম, পানি ১ লিটার, অরেঞ্জ জুস, পাইন আপেল স্যুপ ২০০ মি.লি., ফ্রুট কালার ২০ গ্রাম, ঘি ১০০ গ্রাম, কুকিং অয়েল ৫০ মিলি, পেস্তাবাদাম, কাঠবাদাম, কিশমিশ, চেরি ও বেবি সুইট গার্নিসের জন্য।

প্রস্তুত প্রণালি : প্রথমে চাল, পানি, জুস, ঘি, অয়েল ও কালার একসঙ্গে দিয়ে জর্দা তৈরি করতে হবে (জর্দার জন্য রাইস)। এরপর চিনির মধ্যে ১০০ মিলি জুস/পানি দিয়ে বয়েল করে সিরাপ বানাতে হবে। সিরাপ জর্দার মধ্যে দিয়ে পাঁচ মিনিট ভালো করে নাড়তে হবে।

শাহি জর্দারেসিপিটি প্রকাশিত হয় ২২ জানুয়ারি ২০১৪
1SAMAKAL=LOGO

 
 
%d bloggers like this: