RSS

Category Archives: পোলাও

সবজি-মাংসের বাহারি পোলাও

উপকরণ : গরুর মাংস ১ কেজি, আদা বাটা ১ চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ, দারুচিনি- এলাচ ৩-৪ টুকরা, গোলমরিচ ৩ চা চামচ, বেরেস্তা ২ কাপ, তেজপাতা ২টি, ঘি আধা কাপ, তেল ১ কাপ, কাঁচামরিচ ১২-১৪টি, ফুলকপি আধা কাপ, গাজর আধা কাপ, মটরশুঁটি আধা কাপ, শসা আধা কাপ, আলু আধা কাপ, পটোল আধা কাপ, চাল পৌনে ১ কেজি।

প্রস্তুত প্রণালি : মাংস ছোট ছোট টুকরা করে নিতে হবে। প্যানে তেল দিয়ে তেজপাতা, এলাচ, দারুচিনি, পেঁয়াজ কুচি, আদা বাটা, রসুন বাটা দিয়ে মাংস রান্না করতে হবে। সব সবজি আলাদা আলাদা তেলে ভেজে তুলতে হবে। প্যানে তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি, আদা, রসুন বাটা দিয়ে চাল কষাতে হবে। পরিমাণ মতো পানি দিতে হবে। যখন ফুটে আসবে তখন সব সবজি ও মাংস মিশিয়ে দিতে হবে। এরপর গোলমরিচ ছিটিয়ে দিয়ে দমে দিতে হবে। রান্না শেষ হলে ঘি ছিটিয়ে পরিবেশন করতে হবে।

সবজি-মাংসের বাহারি পোলাওরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১ অক্টোবর ২০১৪
1SAMAKAL=LOGO

Advertisements
 
১ টি মন্তব্য

Posted by চালু করুন অক্টোবর 1, 2014 in ঈদের রান্না, চাল ডাল, পোলাও

 

ইলিশ ভাপে মুগ পোলাও

উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ২ কাপ, হলুদ গুঁড়া ১ চা–চামচ, মুগ ডাল ১ কাপ, বেরেস্তা ১ কাপ, তেল আধা কাপ, সরিষাবাটা ২ টেবিল চামচ, জিরা ১ চা–চামচ, ইলিশ মাছ ৬ টুকরা, চা–চামচ, সরিষার তেল ৪ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, কাচা মরিচ ৮–১০টা, এলাচি–দারুচিনি ৪টি করে।

প্রণালি : ইলিশ মাছের টুকরাগুলো বেরেস্তা, হলুদ গুঁড়া, সরিষাবাটা, সরিষার তেল, কাঁচা মরিচ ও লবণ দিয়ে একসঙ্গে মাখিয়ে একটি টিফিনবাটিতে ঢাকনা দিয়ে রাখতে হবে। চাল ১০ মিনিট ভিজিয়ে রাখতে হবে। অন্য হাঁড়িতে তেল দিয়ে জিরা ও সরিষার ফোড়ন দিয়ে পেঁয়াজ ও তেজপাতা দিতে হবে। পেঁয়াজ বাদামি হলে পানি দিতে হবে। পানির পরিমাণ হবে চাল ও ডালের দেড় গুণ। এবার লবণ ও কঁাচা মরিচ দিতে হবে। পানি ফুটে উঠলে ভেজানো চাল দিতে হবে। পানি সমান হলে মাঝখানে ফাঁকা করে মাছের বাটি বসিয়ে দমে বসাতে হবে ২০ মিনিট। এবার চুলা বন্ধ করে আরও ১০ মিনিট পর হাঁড়ি খুলে মাছ বের করতে হবে। এবার মাছ ও পোলাও সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে।

ইলিশ ভাপে মুগ পোলাওরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ২৮ জুলাই ২০১৪
PALO

 

ইলিশ পোলাও

উপকরণ : ইলিশ মাছ ১টি (বড় হলে ভালো হয়)। পোলাওয়ের চাল আধা কেজি। আদা বাটা ১ চা-চামচ। রসুন বাটা আধা চা-চামচ। নারকেলের দুধ ১ কাপ। তেল আধা কাপ। দারুচিনি কয়েকটি। এলাচ কয়েকটি। পেঁয়াজ বাটা ১ কাপ। পানি ৪ কাপ। কাঁচামরিচ ২০টি। চিনি ১ চা-চামচ। লবণ স্বাদমতো।

পদ্ধতি : মাথা ও লেজ বাদে মাছ ৮ থেকে ১০ টুকরা করতে হবে। আদা, রসুন, লবণ আর নারকেলের দুধ দিয়ে মাছের টুকরাগুলো মাখিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন। যে পাত্রে মাছ রান্না করবেন সেটাতে তেল গরম করে দারুচিনি, এলাচসহ বাটা পেঁয়াজ দিয়ে মসলা কষাতে হবে। ভুনা হয়ে আসলে মসলার মধ্যে মাছের টুকরাগুলো ছেড়ে কম জ্বালে ২০ মিনিট ঢেকে রেখে দিন। মাঝে খুব সাবধানে মাছগুলো উল্টিয়ে দেবেন। মসলা তেলের উপর উঠলে নামিয়ে ফেলুন। তারপর পাত্র কাত করে রেখে তেল ঝরান। এখন মাছ রান্নার তেল থেকে দুই চামচ তেল নিয়ে পোলাও রান্নার পাত্রে দিন। এতে পেঁয়াজ দিয়ে বেরেস্তার মতো করে ভেজে সঙ্গে পানি আর স্বাদমতো লবণ দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। পানি ফুটলে চাল ঢেলে দিয়ে নাড়ুন। এভাবে মৃদু আঁচে ১৫ মিনিট রেখে পোলাও চুলা থেকে নামিয়ে নিন। এবার মসলা থেকে মাছ আলাদা করুন।

পাত্র থেকে অর্ধেকের বেশি পোলাও তুলে আলাদা পাত্রে রেখে বাকি পোলাওয়ের ওপর মাছের তেল, মসলা, চিনি ও ৫-৬টি মরিচ দিন। এর ওপর আলাদা পাত্রে তুলে রাখা পোলাও থেকে অর্ধেক নিয়ে ঢেকে দিন। দমে ২৩ মিনিট রাখুন।

এবার ৪-৫ টুকরা মাছ পোলাওয়ের ওপর সুন্দর করে বিছিয়ে, বাকি পোলাও দিন। এর ওপর বাকি মাছের টুকরাগুলোর সঙ্গে আরও কিছু কাঁচামরিচ দিয়ে ১০ থেকে ১৫ মিনিট আবার দমে রাখুন। এভাবেই হয়ে গেল ইলিশ পোলাও।

ইলিশ পোলাওরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১৭ আগস্ট ২০১৩
LOGO_SHUPROBHAT_BANGLADESH

 

কাশ্মীরি পোলাও

উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ৩০০ গ্রাম, কিশমিশ ৫০ গ্রাম, আপেল টুকরা ১০০ গ্রাম, কাজুবাদাম ১০০ গ্রাম, আনারস টুকরা ১০০ গ্রাম, লবণ ও চিনি স্বাদমতো, ঘি ৫০ গ্রাম, মাওয়া ৫০ গ্রাম, তেল ১০০ গ্রাম, গরম মসলা পরিমাণমতো।

প্রণালি : চাল ভালো করে পানিতে ধুয়ে সেদ্ধ করে নিন। অন্য একটি সসপ্যানে ঘি ও তেল ঢেলে তাতে গরম মসলা দিয়ে নাড়ুন। এরপর কিশমিশ, আপেল, আনারস, কাজুবাদাম দিয়ে নেড়ে নিন। এরপর লবণ, চিনি, মাওয়া ঢেলে এর ওপর সেদ্ধ করা চাল ঢেলে ভালোভাবে মিশিয়ে নাড়াচাড়া করে নামিয়ে পরিবেশন করুন।

কাশ্মীরি পোলাওরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ২৮ মে ২০১৩
PALO

 

সয়া পোলাও

ক) কোপ্তা উপকরণ : সয়া নাগেট এক কাপ, আদা বাটা এক চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি এক চা চামচ, পেঁয়াজ মিহি কুচি এক কাপের চার ভাগের এক ভাপ, কর্ন ফ্লাওয়ার এক টেবিল চামচ, তেল দুই কাপ।

খ) পোলাও উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি এক টেবিল চামচ, আদা বাটা এক চা চামচ, রসুন বাটা আধা চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া আধা চা চামচ, লবঙ্গ, এলাচ, দারুচনি দুটি করে, তেজপাতা তিনটি, গুঁড়া দুধ এক টেবিল চামচ, চিনি এক চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, সিদ্ধ মটরশুঁটি আধা কাপ, গরম পানি এক লিটার, ঘি বা তেল তিন টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ পাঁচটি।

ক) কোপ্তা যেভাবে তৈরি করবেন :

১. এক চা চামচ তেলে সয়া নাগেট ভেজে ফুটন্ত গরম পানিতে ১০ মিনিট এবং ঠাণ্ডা পানিতে ১০ মিনিট ভিজিয়ে চিপে পানি ফেলে নিন।
২. এবার ভেজানো নাগেট মিহি কিমা করে নিন।
৩. তেল ছাড়া সব উপকরণ এবং সয়া একত্রে মেখে কোপ্তা বানিয়ে ভাজুন।

খ) কোপ্তা পোলাও যেভাবে তৈরি করবেন :

১. পোলাওয়ের চাল ধুয়ে ৩০ মিনিট ভিজিয়ে রেখে ১০ মিনিট পানি ঝরিয়ে রাখুন।
২. হাঁড়িতে ঘি বা তেল দিয়ে গরম হলে পেঁয়াজ কুচি, আস্ত গরম মসলা ভেজে নিন। এবার চাল, মটরশুঁটি ও আদা-রসুন বাটা দিয়ে ভাজুন।
৩. চাল ভাজা হলে গরম পানি ও লবণ দিয়ে নেড়ে ঢেকে দিন। পানি ফুটে ওঠা পর্যন্ত চড়া আঁচে রাখুন। এবার দুধ, গুঁড়া মসলা ও চিনি দিয়ে নেড়ে ঢেকে আঁচ কমিয়ে ১৫ মিনিট রাখুন।
৪. পোলাওয়ের ভাঁজে ভাঁজে কোপ্তা ও কাঁচা মরিচ মিলিয়ে ঢেকে দমে রাখুন আরো ১০ মিনিট। নামিয়ে পরিবেশন করুন।

সয়া পোলাওরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ৭ অক্টোবর ২০১৩
KALER KANTHA LOGO

 

কবুতরের পোলাও

উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ১ কেজি, কবুতর ৬টি, ঘি আধা কাপ, তেল ১ কাপ, আদা বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ টেবিল চামচ, পোস্তদানা বাটা ২ টেবিল চামচ, বাদাম বাটা ২ টেবিল চামচ, টক দই আধা কাপ, মিষ্টি দই সিকি কাপ, দুধ ১ কাপ, পেঁয়াজ বাটা সিকি কাপ, পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, জায়ফল-জয়ত্রী গুঁড়া আধা চা-চামচ, গরম মসলার গুঁড়া ১ চা-চামচ, সাদা গোলমরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, মাওয়া গুঁড়া সিকি কাপ, দারুচিনি ৮ টুকরা, এলাচ ৮টি, লবঙ্গ ৬টি, তেজপাতা ২টি, জাফরান আধা চা-চামচ, গোলাপজল ২ টেবিল চামচ, পেস্তাবাদাম কুচি ২ টেবিল চামচ, কিশমিশ ১ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ ৫-৬টি, আলুবোখারা ৮-১০টি।

প্রণালি : চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে রাখতে হবে। ২ টেবিল চামচ দুধ ও গোলাপজলে জাফরান ভিজিয়ে রাখতে হবে। প্রতিটি কবুতরের চামড়া ছাড়িয়ে ধুয়ে পানি ঝরাতে হবে। ঘি, তেল একসঙ্গে গরম করে পেঁয়াজ বেরেস্তা করে আদা, রসুন, পেঁয়াজ বাটা দিয়ে ভুনে কবুতরের মাংস দিয়ে কষাতে হবে। এতে লবণ ও গোলমরিচ গুঁড়া দিতে হবে। ১০ মিনিট পর টক-মিষ্টি দই, পোস্তদানা বাটা, ১ টেবিল চামচ বাদাম বাটা, অর্ধেক গরম মসলা, জায়ফল-জয়ত্রী গুঁড়া ও আলুবোখারা দিতে হবে। মাংস ভালো করে ভুনে অল্প পানি দিয়ে সেদ্ধ করতে হবে। মাংস তেলের ওপর উঠলে মাংস উঠিয়ে রেখে সেই হাঁড়িতে ৩ কাপ গরম পানি দিয়ে চাল দিতে হবে। এবার বাকি গরম মসলা ও লবণ দিতে হবে। ফুটে উঠলে ২ টেবিল চামচ লেবুর রস দিতে হবে। চালের পানি কমে গেলে দুধের সঙ্গে ১ টেবিল চামচ বাদাম বাটা গুলিয়ে দিয়ে ১০ মিনিট দমে রাখতে হবে। কিছু মাওয়া গুঁড়া পোলাওয়ে দিতে হবে। এবার পোলাওয়ের হাঁড়ি থেকে কিছুটা পোলাও উঠিয়ে নিয়ে মাংস বিছিয়ে দিয়ে তার ওপর কিছু মাওয়া, গরম মসলার গুঁড়া, মিশ্রিত জাফরান দিতে হবে। এবার বাকি পোলাও দিয়ে কাঁচা মরিচ, মাওয়া, গরম মসলার গুঁড়া, জাফরান দিয়ে হাঁড়ির ঢাকনা ভালো করে বন্ধ করে ঢাকনার ওপর গরম পানির হাঁড়ি বসিয়ে মৃদু জ্বালে ১৫-২০ মিনিট রাখতে হবে। নামিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

কবুতরের পোলাওরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ০৬ আগস্ট ২০১৩
PALO

 

চিংড়ি পোলাও

উপকরণ : পোলাওয়ের চাল ১ কেজি, চিংড়ি মাঝারি আকারের আধা কেজি, দুধ ২ কাপ, নারকেল কোরা আধা কাপ (বেটে মিহি করা), পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, পেঁয়াজ বাটা আধা কাপ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, দারুচিনি, এলাচি ও তেজপাতা ২টা করে, কাঁচা মরিচ ৫-৬টি, মরিচের গুঁড়া সামান্য পরিমাণ।

প্রণালি : প্রথমে পেঁয়াজের কুচি সামান্য তেলে ভেজে বাদামি করে নিতে হবে। এতে একে একে পেঁয়াজ বাটা, নারকেল বাটা, আদা বাটা, দারুচিনি, এলাচি, তেজপাতা, লবণ ও মরিচের গুঁড়া দিয়ে তাতে চিংড়ি মাছ ঢেলে দিন। সামান্য পানি দিয়ে চিংড়ি মাছগুলোকে কষিয়ে নিন। এবার তাতে দুধ দিয়ে ১০-১৫ মিনিট পরে নামিয়ে নিন। চিংড়ি ও ঝোল আলাদা পাত্রে রাখতে হবে। ঝাল পছন্দ করলে নামানোর আগে কাঁচা মরিচ দিতে পারেন। সাধারণভাবে পোলাও রান্না করে চিংড়ির ঝোল দিয়ে দিন তাতে। অল্প আঁচে জ্বাল দিয়ে এবার ওপরে আগের রান্না করা চিংড়িগুলো দিয়ে পরিবেশন করুন।

চিংড়ি পোলাওরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ৩০ জুলাই ২০১৩
PALO

 
 
%d bloggers like this: