RSS

সমুচা

উপকরণ : ময়দা ২ কাপ, তেল সিকি কাপ, লবণ ১ চা-চামচ, ভাজা জিরা গুঁড়া ১ চা-চামচ, পানি পরিমাণমতো, কাবাব মসলা ১ চা-চামচ, গরু বা মুরগির কিমা ৫০০ গ্রাম, কাঁচা মরিচ কুচি ২ টেবিল-চামচ, পেঁয়াজ (কিউব কাট) ২ কাপ, আদাবাটা ১ টেবিল-চামচ, রসুনবাটা ১ চা-চামচ।

প্রণালি : আদা, রসুন, লবণ, ১ টেবিল-চামচ তেল ও সামান্য পানি দিয়ে কিমা সেদ্ধ করে পানি শুকিয়ে নিন। চুলায় পাত্রে তেল দিয়ে পেঁয়াজ দিন। একটু নেড়ে সেদ্ধ কিমা, কাঁচা মরিচ কুচি ও কাবাব মসলা দিয়ে নেড়েচেড়ে নামিয়ে ঠান্ডা করে নিন।

সমুচার রুটি তৈরির জন্য ময়দা, ১ চা-চামচ লবণ ও পানি দিয়ে খামির বানিয়ে ১০ মিনিট ঢেকে রাখুন। খামির ৬টি ভাগে ভাগ করে পাতলা রুটি বেলে নিন। এবার একটি রুটি বিছিয়ে তার ওপর একটু তেল মাখিয়ে ময়দা দিয়ে ঢেকে দিন। ময়দা মাখানো রুটির ওপর আর একটি রুটি বিছিয়ে আগের মতো তেল ও ময়দা মাখিয়ে নিন। এভাবে একটির পর একটি রুটি দিয়ে হাতের তালু দিয়ে চেপে চেপে বড় করে নিন। ভালোভাবে সব রুটি আটকে গেলে বড় একটা ১৫ বাই ১৬ ইঞ্চি মাপের রুটি বেলে নিন। দুপাশই ভালোমতো বেলুন। এবার গরম তাওয়ায় হালকাভাবে রুটি সেঁকে একটা একটা করে রুটি আলাদা করে নিন। আবার ছয়টি রুটি পেয়ে যাবেন। এবার রুটিগুলো আট ইঞ্চি লম্বা ও তিন ইঞ্চি চওড়া করে যে কটি সম্ভব কেটে নিন। রুটির বাকি অংশ তেলে ভেজে গুঁড়া করে নিন এবং রান্না করা কিমার সঙ্গে পরিমাণমতো মিশিয়ে দিন।

আধা কাপ ময়দা পানি দিয়ে আঠালো করে রাখুন। লম্বা সমুচার রুটি কোনাকুনি ভাঁজ দিয়ে ময়দার আঠা লাগিয়ে তিন কোনা পকেট বানান। তাতে কিমার পুর ভরে ভাঁজ দিয়ে মুখ বন্ধ করে সমুচা বানিয়ে নিন। হালকা গরম তেলে বাদামি করে ভেজে উঠান।

হিমায়িত করতে চাইলে ৫টি বা ১০টি সমুচা নিয়ে পলিথিনের প্যাকে ভরে মুখ সিল করে ডিপ ফ্রিজে রাখুন। শক্ত হলে নেড়েচেড়ে দিন। তখন নেড়েচেড়ে দিতে হবে। এতে সমুচাগুলো একটির সঙ্গে আরেকটি লেগে যাবে না।

সমুচারেসিপিটি প্রকাশিত হয় ২৫ আগস্ট ২০১৫
PALO

 
মন্তব্য দিন

Posted by চালু করুন অগাষ্ট 25, 2015 in নাস্তা

 

ইলিশ বিরিয়ানি

উপকরণ : তেলওয়ালা বড় ইলিশ ৪ টুকরা (ডিম থাকলে বাদ দিয়ে দিন), বাসমতী চাল ৫০০ গ্রাম, পেঁয়াজবাটা এক কাপের তিন ভাগের এক ভাগ, পেঁয়াজ কুচি আধা কাপ, আদাবাটা ১ চা-চামচ, রসুনবাটা সিকি চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া এক চা-চামচের একটু কম, টকদই ১ টেবিল চামচ, নারকেলের ঘন দুধ ২ কাপ, কাঁচা মরিচ ১৪-১৫টা (আস্ত), চিনি আধা চা-চামচ, কিশমিশ ২ টেবিল চামচ, জাফরান রং ১ চিমটি, গরমমসলার গুঁড়া ১ চিমটি। লবঙ্গ, দারুচিনি, এলাচি প্রতিটা ৩টা করে, লবণ স্বাদমতো, তেল আধা কাপ, ঘি সিকি কাপ।

প্রণালি : প্যানে ঘি গরম করে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে বেরেস্তা করে তুলে রাখুন। তাতে কিশমিশগুলোও ভেজে তুলে নিন। সেই ঘিয়ের সঙ্গে অর্ধেকটা তেল মিশিয়ে বাটা পেঁয়াজ দিয়ে একটু ভেজে নিন। এবার মরিচ গুঁড়া, রসুনবাটা দিয়ে কষিয়ে নিয়ে লবণ মাখানো ইলিশের টুকরাগুলো দিন। হালকা কষিয়ে চিনি দিয়ে ফেটানো দই দিয়ে ভালো করে মেশান। অল্প গরম পানি দিয়ে ঢেকে মিনিট ১৫ রান্না করে নামিয়ে নিন। নামানোর আগে গরমমসলার গুঁড়া ছড়িয়ে দিন।
আরেকটি পাত্রে চাল অনুপাতে ফুটন্ত পানি, নারকেল দুধ আর লবণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। অন্য একটি প্যানে বাকি তেলটা দিয়ে তাতে রান্না করা ইলিশের তেলটাও (শুধু তেল, ঝোল বা মসলা না) মিশিয়ে নিন। এবার তাতে গরমমসলার ফোড়ন দিয়ে চাল দিয়ে দিন। আদাবাটা দিয়ে ৪-৫ মিনিট ভেজে নারকেল দুধ, পানি আর লবণের মিশ্রণ মিশিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিন। পানি আর চাল সমান হয়ে এলে ৪-৫টি বাদে বাকি কাঁচা মরিচগুলো দিয়ে দিন। এবার চুলার আঁচ কমিয়ে প্যানের নিচে তাওয়া দিয়ে পোলাও দমে বসিয়ে নিন।

পোলাও নামিয়ে ২ টেবিল চামচ পোলাওয়ের সঙ্গে জাফরান রং মিশিয়ে রাখুন। একটা হাঁড়িতে অল্প করে ঘিয়ের প্রলেপ দিয়ে তাতে প্রথমে পোলাওয়ের স্তর, তারপর হালকা করে সামান্য জাফরান রঙের পোলাও, তার ওপর বেরেস্তা আর কিশমিশ ছড়িয়ে দিন। এর ওপরে আবার পোলাওয়ের স্তর, তারপর রান্না ইলিশের মসলার স্তর, আবারও সামান্য জাফরান রঙের পোলাও, বেরেস্তা আর কিশমিশ ছড়িয়ে দিন। বাকি মসলা, ইলিশ, বেরেস্তা আর ৪-৫টা আস্ত কাঁচা মরিচ দিয়ে দমে দিন ২০-২৫ মিনিটের জন্য। পরিবেশনের আগে আর ঢাকনা না খোলাই ভালো। পরিবেশনের সময় মাছের টুকরাগুলো সাবধানে তুলে রেখে পোলাও হালকা হাতে মিশিয়ে পরিবেশন পাত্রে তুলে নিন। ওপরে ইলিশের টুকরাগুলো সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

ইলিশ বিরিয়ানিরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১৮ আগস্ট ২০১৫
PALO

 

ডাব ইলিশ

উপকরণ : ইলিশ ৪ টুকরা, ডাব ১টা (পানি ও নরম মালাইসহ), পেঁয়াজবাটা ১ টেবিল চামচ, পোস্তদানাবাটা আধা চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, রসুনবাটা সিকি চা-চামচ, কাঁচা মরিচ ৪-৫টা, অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল প্রয়োজনমতো, লবণ স্বাদমতো, তেল আধা কাপ।

প্রণালি : ডাবের পানি ও শাঁস বের করে নিয়ে খোলাটাকে ২ ফালি করে কেটে রাখুন। ডাবের নরম শাঁস কুচি করে নিন। পেঁয়াজ আর পোস্তদানা কিছুটা ডাবের পানি দিয়ে পাতলা করে বেটে নিন। ফয়েল বাদে বাকি সব উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। বাকি ডাবের পানিসহ এই মিশ্রণ দিয়ে মাছের টুকরাগুলো মেখে আধা ঘণ্টা রেখে দিন। মাখানো মাছ প্যানে ঢেলে ঢাকনা দিয়ে কম আঁচে ১২-১৫ মিনিট রান্না করে নিন। মাঝে একবার খুব সাবধানে মাছ উল্টে দিন। চুলা থেকে নামিয়ে প্রতিটি ডাবের খোলায় ঝোল-মসলাসহ ২ টুকরা মাছ নিয়ে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল দিয়ে ঢেকে দিন। ১৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপে প্রি-হিট করা ওভেনে ৭-৮ মিনিট বেক করে নিন। নামিয়ে ফয়েল খুলে ডাবের খোলাতেই সরাসরি পরিবেশন করুন।

ডাব ইলিশরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১৮ আগস্ট ২০১৫
PALO

 
মন্তব্য দিন

Posted by চালু করুন অগাষ্ট 18, 2015 in ইলিশ মাছ, মাছ

 

লেবু ইলিশ

উপকরণ : ইলিশ মাছ ৪ টুকরা, পেঁয়াজবাটা ২ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, কাগজিলেবু ১-২টি, কাঁচামরিচ ৬-৭টা, লেবু পাতা ৪-৫টা (ইচ্ছা), লবণ স্বাদমতো, তেল এক কাপের তিন ভাগের এক ভাগ।

প্রণালি : লেবুর রস আর লবণ মেখে মাছের টুকরাগুলো আধা ঘণ্টা রেখে দিন। প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজবাটা ও হলুদ গুঁড়া দিয়ে কষিয়ে নিন। তাতে ম্যারিনেট করে রাখা ইলিশের টুকরাগুলো ছেড়ে দিন। ২-৪ মিনিট পর উল্টেপাল্টে দিয়ে প্রয়োজনমতো গরম পানি দিয়ে দিন। সঙ্গে ফালি করা কাঁচা মরিচও দিন। সেদ্ধ হয়ে এলে স্বাদ চেখে নিন। প্রয়োজনবোধে আরও খানিকটা লেবুর রস আর হাতে কচলানো লেবুর পাতা দিয়ে ২-৪ মিনিট রাখতে পারেন। চুলা থেকে নামানোর একটু পরেই লেবু পাতা তুলে ফেলবেন। নইলে তরকারি তেতো হয়ে যেতে পারে।

লেবু ইলিশরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১৮ আগস্ট ২০১৫
PALO

 
১ টি মন্তব্য

Posted by চালু করুন অগাষ্ট 18, 2015 in ইলিশ মাছ, মাছ

 

আলু-বেগুন-আমড়ায় ইলিশের টক

উপকরণ : ইলিশ মাছ ৪-৫ টুকরা (মাথা-লেজসহ), আলু ১টি, লম্বা বেগুন ১টি, আমড়া ২টি, পেঁয়াজ ১টা (কুচি), হলুদ গুঁড়া ২-৩ চা-চামচ, জিরা গুঁড়া ১ চা-চামচ, কাঁচা মরিচ ৭-৮টা (ফালি করা), লবণ স্বাদমতো, সরিষার তেল আধা কাপ।

প্রণালি : সব সবজি লম্বা ফালি করে কেটে নিন। প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি সোনালি করে ভেজে নিন। তাতে হলুদ ও জিরা গুঁড়া দিয়ে কষিয়ে নিন। লবণ মাখানো ইলিশের টুকরাগুলো দিয়ে ৪-৫ মিনিট কষিয়ে তুলে নিন। তারপর এই প্যানেই আলু, বেগুন, আমড়া আর লবণ দিয়ে কষিয়ে নিয়ে গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিন। সবজিগুলো প্রায় সেদ্ধ হয়ে গেলে কষানো ইলিশ মাছ আর ফালি করা কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন। গা-মাখা ঝোল থাকতে ওপরে খানিকটা সরিষার তেল ছড়িয়ে দিয়ে নামিয়ে নিন। যাঁরা কষানো মাছ খেতে পারেন না, তাঁরা চাইলে লবণ হলুদ দিয়ে মাছ হালকা ভেজেও রাঁধতে পারেন। আর আমড়ার টক কম মনে হলে নামানোর আগে স্বাদ অনুযায়ী খানিকটা লেবুর রস ছড়িয়ে দিতে পারেন।

আলু-বেগুন-আমড়ায় ইলিশের টকরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১৮ আগস্ট ২০১৫
PALO

 
মন্তব্য দিন

Posted by চালু করুন অগাষ্ট 18, 2015 in ইলিশ মাছ, মাছ

 

কলা পাতায় ইলিশ পাতুড়ি

উপকরণ : ইলিশ মাছ ৪ টুকরা, পেঁয়াজবাটা ২ চা-চামচ, সরিষা বাটা ২ চা-চামচ, কাঁচা মরিচ বাটা ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ, নারকেলবাটা সিকি কাপ, লবণ স্বাদমতো, সরিষার তেল ৪-৫ টেবিল চামচ (চাইলে সয়াবিন তেলও ব্যবহার করতে পারেন), কলা পাতা প্রয়োজনমতো, টুথপিক বা সুতা প্যাকেটের মুখ বন্ধের জন্য।

প্রণালি : কলা পাতার ডাঁটি ফেলে ধুয়েমুছে নিয়ে চুলার আগুনে হালকা সেঁকে নিন। এতে ভাঁজ করার সময় পাতা ছিঁড়ে যাবে না। সব উপকরণ একসঙ্গে মাছে মেখে ২৫-৩০ মিনিট রেখে দিন। তারপর কলা পাতায় মসলাসহ এক টুকরা করে মাছ নিয়ে প্রতিটি মাছের আলাদা ছোট প্যাকেট বানিয়ে নিন। সুতা বা টুথপিক দিয়ে প্যাকেটের মুখ বন্ধ করে দিন, যাতে মসলা বেরিয়ে না যায়। এবার প্যানে অল্প তেল দিয়ে মাছের প্যাকেটগুলো পাশাপাশি সাজিয়ে দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে ১২-১৫ মিনিট ভাপে রাখুন। মাঝে একবার খুব সাবধানে উল্টে দিন। কলা পাতা পোড়া পোড়া হয়ে এলে নামিয়ে নিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

কলা পাতায় ইলিশ পাতুড়িরেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১৮ আগস্ট ২০১৫
PALO

 
মন্তব্য দিন

Posted by চালু করুন অগাষ্ট 18, 2015 in ইলিশ মাছ, মাছ

 

ঢ্যাঁড়সের দোলমা

উপকরণ : ঢ্যাঁড়স ২৫০ গ্রাম, চিংড়ি ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, হলুদগুঁড়া ১ চা-চামচ, মরিচগুঁড়া ১ চা-চামচ, টমেটো ১টা, টকদই ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ চা-চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ, জিরাগুঁড়া ১ চা-চামচ, ধনেগুঁড়া ১ চা-চামচ, ধনেপাতা কুচি সামান্য।

প্রণালি : ঢ্যাঁড়স ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন, মাঝে চিরে ভেতরের বিচি বের করে নিন। অল্প তেলে পেঁয়াজ ২ টেবিল চামচ, চিংড়ি (ছোট ছোট টুকরা করে কাটা), আধা চা-চামচ হলুদ ও মরিচগুঁড়া, ধনে ও জিরাগুঁড়া আধা চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ও সামান্য লবণ দিয়ে ভেজে নিন। ঢ্যাঁড়সের ভেতর চিংড়ির পুর ঢুকিয়ে দিন যাতে ঢ্যাঁড়স ভেঙে বা ফেটে না যায়। এবার অন্য পাত্রে ১ টেবিল চামচ তেলে বাকি সব উপকরণ ভেজে তাতে পুর ভরা ঢ্যাঁড়স ঢেলে ঢেকে দিন। চুলায় একটু রেখে ধনেপাতা দিয়ে নামিয়ে নিন।
ঢ্যাঁড়সের দোলমা

রেসিপিটি প্রকাশিত হয় ১১ আগস্ট ২০১৫
PALO

 
2 টি মন্তব্য

Posted by চালু করুন অগাষ্ট 17, 2015 in ঢ্যাঁড়স, শাকসবজি

 
 
Follow

Get every new post delivered to your Inbox.

Join 265 other followers

%d bloggers like this: